ঈদযাত্রায় সব সড়ক পথেই ঘরমুখো মানুষের চাপ বেড়েছে

ঈদযাত্রায় সব সড়ক পথেই ঘরমুখো মানুষের চাপ বেড়েছে। হাজার হাজার যানবাহন ও যাত্রীর চলাচলে মহাসড়কগুলো এখন মুখরিত। চাপ বাড়ায় গতকাল বিকাল পর্যন্ত সব মহাসড়কেই কিছুটা যানজট ছিল। তবে আগের ঈদের তুলনায় যানজট অনেক কম বলে পরিবহন কোম্পানি এবং সওজ সূত্রে জানা গেছে। গুরুত্বপূর্ণ মহাসড়কগুলোতে যানজট সহনশীল পর্যায়ে থাকলেও শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী এবং পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথের ফেরিঘাটের চিত্র কিছুটা ভিন্ন ছিল। এখানে ফেরি পারাপারের বিড়ম্বনার কারণে ঘরমুখো মানুষ ও পরিবহন চালকরা ভোগান্তিতে পড়েছেন। ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-সিলেট, ঢাকা-টাঙ্গাইল, ঢাকা-আরিচা, ঢাকা-মাওয়া ও ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে গতকাল যানবাহনের চাপ থাকলেও তীব্র যানজট দেখা যায়নি।
জানা গেছে, শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী এবং পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের উভয় দিকে গতকাল যানজটের সৃষ্টি হয়। পদ্মা নদীতে তীব্র স্রোতের কারণে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। এ কারণেই উভয় দিকে যানবাহনের দীর্ঘ সারি সৃষ্টি হয়েছে। গতকাল রবিবার দুপুর আড়াইটার দিকে দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে গোয়ালন্দ বাজার পর্যন্ত ৭ কিলোমিটার সড়কে শত শত পশু বোঝাই ট্রাক, যাত্রীবাহী বাস ও ছোট গাড়িচালক ও যাত্রীরা ভোগান্তিতে পড়েন। ঘণ্টার পর ঘণ্টা তাদের অপেক্ষার প্রহর গুণতে দেখা যায়। বাস চালকরা জানান, অনেকেই শনিবার মধ্যরাত এবং ভোরের দিকে দৌলতদিয়ায় এসে পৌঁছেন। কিন্তু ফেরি না পাওয়ায় আটক পড়েছেন। তারা গাড়ি নিয়ে সময়মতো ঢাকায় পৌঁছতে না পারায় ঢাকা থেকেও ঘরমুখো যাত্রীদের বাসের জন্য অপেক্ষা করতে হয়েছে। এই ঘাটে কোরবানির পশু বোঝাই শতাধিক ট্রাকও আটকা পড়েছে।

আপনার মতামত দিন