কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে যোগ দিচ্ছেন বাবিসাস সভাপতি আবুল হোসেন মজুমদার ও বাচসাস যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিমন মাহফুজ

সুস্মিতা বিশ্বাস, কলকাতা ঃ ৮ নভেম্বর থেকে কলকাতায় শুরু হচ্ছে ২৫তম আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। সেদিন বিকেলে কলকাতার নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামে প্রদীপ জ্বালিয়ে উৎসব উদ্বোধন করবেন ভারতের চলচ্চিত্রের বরেণ্য তারকা অমিতাভ বচ্চন। সঙ্গে আরও থাকবেন শাহরুখ খান, জয়া বচ্চন, শর্মিলা ঠাকুর, সঞ্জয় দত্ত, রাখী গুলজার প্রমুখ। অমিতাভ বচ্চন টানা ষষ্ঠবারের মতো এই উৎসব উদ্বোধন করতে আসছেন। এ জমকালো অনুষ্ঠানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আগত অতিথি শিল্পী-কলাকৌশুলীদের অংশ নিবেন বাংলাদেশ বিনোদন সাংবাদিক সমিতি বাবিসাস সভাপতি আবুল হোসেন মজুমদার ও বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি বাচসাস এর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিমন মাহফুজ।
উৎসব চলবে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত। উৎসবে দেখানো হবে শতবর্ষের বাংলা ছবি। থাকবে সত্যজিৎ রায়ের ‘গুপী গাইন বাঘা বাইন’ ও ঋত্বিক ঘটকের ‘মেঘে ঢাকা তারা’। এ বছর ‘মেঘে ঢাকা তারা’ ছবির ৫০ বছর পূর্তি হচ্ছে। এবার উৎসবে ২৪টি দেশের ৫৬ জন প্রতিনিধি এবং ভারতের ৬০ জন প্রতিনিধি অংশ নেবেন। উৎসবের ফোকাস কান্ট্রি ‘জার্মানি’। উৎসবে জার্মানির ৪২টি ছবি দেখানো হবে।
গত শুক্রবার বিকেলে কলকাতার শিশির মঞ্চ মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ২৫তম আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের নির্ঘণ্ট ঘোষণা করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উৎসব কমিটির চেয়ারম্যান ও চলচ্চিত্র পরিচালক রাজ চক্রবর্তী, রাজ্যের তথ্য ও সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন, ক্রীড়া ও যুবকল্যাণমন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস, চিত্রনায়িকা কোয়েল মল্লিক, চিত্রনায়ক পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, উৎসব কমিটির মহাপরিচালক বিবেক কুমার প্রমুখ। এখানে চলচ্চিত্র উৎসবের লোগো উন্মোচন করা হয়।
এবার উৎসবে ৭৬টি দেশের ২১৪টি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র, ১৫২টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ও তথ্যচিত্র দেখানো হবে কলকাতার ১৭টি প্রেক্ষাগৃহে। উৎসবে থাকছে বাংলাদেশের দুটি ছবি, ‘আলফা’ ও ‘চন্দ্রাবতী কথা’।
‘চন্দ্রাবতী কথা’ ছবিটি পরিচালনা করেছেন এন রাশেদ চৌধুরী। বাংলা সাহিত্যের প্রথম নারীবাদী কবি চন্দ্রাবতীর লেখক হয়ে ওঠার বেদনা-বিধুর জীবন কাহিনি নিয়ে এই ছবির গল্প। ছবির নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন দোয়েল ম্যাশ। আরও অভিনয় করেছেন জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, মিতা রহমান, গাজী রাকায়েত, আরমান পারভেজ মুরাদ, নওশাবা আহমেদ, ইমতিয়াজ বর্ষণ, জয়িতা মহলানবিশ প্রমুখ।
নাসির উদ্দীন ইউসুফ তাঁর ‘আলফা’ ছবি নিয়ে বললেন, ‘আধুনিক শহরে একজন মানুষ ক্ষয়িষ্ণু শিল্পমাধ্যম (বিলবোর্ড, ব্যানার আঁকার কাজ) নিয়ে কাজ করেন। যান্ত্রিক এ শহরে বাস্তবতার সঙ্গে মানিয়ে এবং অন্তদ্বন্দ্ব নিয়ে তাঁর বেঁচে থাকার চিত্র দেখা যাবে এ ছবিতে।’ ‘একাত্তরের যিশু’ আর ‘গেরিলা’র পর তিনি তৈরি করেছেন ‘আলফা’। ছবির কাহিনি, চিত্রনাট্য ও পরিচালনা করছেন তিনি। মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন আলমগীর কবির ও দোয়েল ম্যাশ। আরও আছেন এ টি এম শামসুজ্জামান, হীরা চৌধুরী, ইশরাত নিশাত, মোস্তাফিজ নূর ইমরান ও ভাস্কর রাসা।
এবার উৎসবে পুরস্কার হিসেবে সেরা বিদেশি ছবির জন্য দেওয়া হবে ৫১ লাখ রুপি আর শ্রেষ্ঠ পরিচালক পাবেন ২১ লাখ রুপি। সঙ্গে থাকবে ‘রয়েল বেঙ্গল গোল্ডেন টাইগার ট্রফি’। সেরা ভারতীয় ছবিকে দেওয়া হবে হীরালাল সেন স্মৃতি পুরস্কার। শ্রেষ্ঠ নির্দেশক পাবেন ৭ লাখ রুপি ও শ্রেষ্ঠ ছবিকে দেওয়া হবে ৫ লাখ রুপি। এ ছাড়া শ্রেষ্ঠ স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবিকে ৫ লাখ রুপি এবং শ্রেষ্ঠ তথ্যচিত্রকে দেওয়া হবে ৩ লাখ রুপির নগদ পুরস্কার। থাকছে এশিয়ার শ্রেষ্ঠ ছবির জন্য নেটপ্যাক পুরস্কার, স্মারক ও অর্থ।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*