কুমিল্লায় লালমাই প্রবাসীর শিশুর সন্তানে নিখোঁজের ছয়দিন পর লাশ উদ্ধার

রবিউল হোসাইন সবুজঃ কুমিল্লার লালমাইয়ে নি’খোঁজের ছয় দিন পর পুকুর থেকে আবু সুফিয়ান সানি (৬) নামের এক শি’শুর লা’শ উ’দ্ধার করেছে পু’লিশ। উপজে’লার বেলঘর উত্তর ইউনিয়নের দক্ষিণ পালপাড়া গ্রামের লুৎফুর রহমানের পুকুর থেকে লা’শটি উ’দ্ধার করা হয়। নি’হত আবু সুফিয়ান সানি দক্ষিণ পালপাড়ার সৌদি প্রবাসী জুয়েল রানার একমাত্র ছে’লে। সে পালপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক-প্রাথমিকের শিক্ষার্থী ছিল। রবিবার নি’হতের দাদা আবদুল গনি বা’দী হয়ে নামসহ ১২ জন নামে এবং অ’জ্ঞাত চারজনের নামে মা’মলা দা’য়ের করেছেন। পু’লিশ ও নি’হতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালের ৮ মা’র্চ দক্ষিণ পালপাড়া গ্রামের আবদুল গনির ছেলে জুয়েল রানা প্রতিবেশী মোস্তফা কামালের মেয়ে মাহমুদা আক্তার খুকিকে গো’পনে বিয়ে করে। দাম্পত্য জীবনে তাদের আবু সুফিয়ান সানির জন্ম হয়। তিন বছর পূর্বে জুয়েল রানা সৌদি আরব চলে যান। ২০১৮ সালের ৯ জুলাই জুয়েল রানাকে তা’লাক নোটিশ দেন স্ত্রী’’ মাহমুদা। কিছুদিন পর আবু সুফিয়ানকে তার দাদা আবদুল গনির হে’ফাজতে রেখে অন্যত্র বিয়ে করেন মাহমুদা। এসবের জে’রে দুই পরিবারের মাঝে দ্ব’ন্দ্ব সৃষ্টি হয়। গত ৫ জানুয়ারি দুপুর থেকে আবু সুফিয়ান নি’খোঁজ হয়েছে বলে লালমাই থানায় সাধারণ ডায়েরি করে তার দাদা আবদুল গনি। শনিবার সন্ধ্যায় পালপাড়া গ্রামের লুৎফুর রহমানের পুকুরে আবু সুফিয়ানের লাশ ভাসতে দেখে পু’লিশে খবর দেয় স্থানীয়রা। লা’শটি উ’দ্ধার করে কুমিল্লা মে’ডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে পুলিশ। তার পা দুটি পুকুরে থাকা নেটের সাথে আটকানো ছিল। শরীরে পচন ধরেছে। নি’হতের দাদা আবদুল গনি বলেন, সুফিয়ানের নানার পরিবার ও আমাদের গ্রামের ইমান আলী গংদের সাথে আমার দ্বন্দ্ব ও মামলা চলমান। যে বা যারাই করুক আমি হত্যাকারীদের ফাঁসি চাই।স্থানীয় বেলঘর উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল খায়ের মজুম’দার বলেন, এটা পরিকল্পিত হত্যাকা’ণ্ড। সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে হত্যাকারীদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি। লালমাই থা’নার ওসি মোহাম্ম’দ আইয়ুব বলেন, লা’শ উ’দ্ধার করে ম’র্গে পাঠিয়েছি। ১২ জনের নামে মা’মলা হয়েছে। মৃ’ত্যুর র’হস্য উদঘাটনে থানা পু’লিশের পাশাপাশি পি’বিআই ও সি’আইডি কাজ করছে।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*